ঘুরে আসলাম প্রানের মেলা থেকে , একুশে বইমেলা ২০১০

ঢাকায় ভর্‌তি হলেও আমার আপাতত কোন থাকার যায়গা নেই , কোন আত্নীয় নেই । কিন্তু আমার একজন খালা আছেন । বাহ্যিক ভাবে হয়ত আমার বন্ধুর খালা হতে পারেন , কিন্তু কখনও আমার তা মনে হয়না । যাক সে কথা , আমি আসছি শুনে খালা বললেন চলে আসতে বাসায় । আমিও আর না করতে পারলাম না । বাস থেকে নেমেই সোজা খালার বাসায় । তিন দিন ছিলাম সেখানে , ২৩-২৪-২৫ তারিখ । কদিন ইন্টারনেট নেই তাও বলতে হবে চমতকার কেটেছে ।

২৩ ফেব্রুয়ারীঃ দুপুর ১১ টার দিকে রওনা দিয়ে ঢাকা আসলাম ৩ টার দিকে । আর খালায় বাসায় ঠিক ৩.৩০ এ । আমার বন্ধু ড্যাফোডিলে পড়ে । পরের দিন তার একটা পারফর্‌ম ছিলো । তার কাজ সেরে সে আসে ৪ টার দিকে । সন্ধ্যা ৭ টায় বের হলাম । সাথে নিয়ে এসেছিলাম ৫০০ টাকা । কিন্তু বইমেলা ঘুরে যে বইই দেখি সেই বই ই পছন্দ হয় । সেই সন্ধ্যায় বই কিনে ফেললাম ৮০০ টাকার – ৩০০ টাকা ধার করে । রাত বলে স্টল গুলো কিভাবে সাজানো বুঝতে পারছিলাম না । সেই রাতে ঘুরাঘুরিই বেশী হল , বই কেনাও কম না !


২৪ ফেব্রূয়ারীঃ সারাদিন বই পড়লাম , বন্ধুর কিনে আনা গুলো । সবগুলো ছিলো মুসতাক আহমেদের লেখা সায়েন্স ফিকশন । সত্যি বলতে কি , মানুষ তো জাফর স্যার আর হুমায়ুন স্যার বলতে পাগল , কিন্তু আরেকজন মানুষ এতো সুন্দর সুন্দর লেখা লিখছেন তা আমার কল্পনাতেই ছিলো না । পড়ে দেখতে পারেন । আমি পড়লাম অনুমানব , রবো , সবুজমানব , প্রজেক্ট ইক্টোপাস ।
বিকালে শুরু হল প্রচন্ড ঝড় । জেলের পাশে ৫ তলার উপর থেকে দেখলাম সেই তান্ডব । রাতে সামান্য বৃষ্টি সত্ত্বেও বেড়িয়ে পড়লাম , কিন্তু বকশিবাজার থেকে বের হতে পারলাম না , চরম বৃষ্টি শুরু হল । আধা ঘন্টা বাদে ভিজেই চলে গেলাম বইমেলায় , কারন আমাকে বই কিনে কাল ই রওনা দিতে হবে । কিন্তু গিয়ে দেখি সব স্টল বন্ধ করে দিচ্ছে । নীচে ভেজা বই পড়ে আছে । আমার দুঃখ মাথা চাড়া দিয়ে উঠল !

২৫ ফেব্রুয়ারীঃ বাকি স্বল্প পুজি নিয়ে ছুটলাম , বিকাল তখন ৫ টা । বই কিনলাম ৬ টা । টাকা তখন শেষ , গুনে গুনে বাসায় যাওয়ার টাকা আছে । আরো আধাঘন্টা বই দেখলাম আর দীর্‌ঘশ্বাস ছাড়লাম । আহারে কত বই ! কিন্তু আমার করে নিতে পারছি না … পরের বার হবে … আরো বেশী টাকা জমাতে হবে …

যে সব বই কিনলামঃ

  • ১। পেবল ইন দ্যা স্কাই – আইজ্যাক আজিমভ
  • ২। চরমপত্র – এম আর আখতার মুকুল
  • ৩। সায়েন্সটুন – আহসান হাবিব
  • ৪। দ্য লষ্ট সিম্বল – ড্যান ব্রাউন ( পিডিএফ আছে কিন্তু বইএর মজাই আলাদা )
  • ৫। সায়েন্স ফিকশান অনুমানব – মোশতাক আহমেদ
  • ৬। পদার্‌থবিদ্যার মজার কথা ১ , ২ – ইয়াকভ পেরেলমান
  • ৭। রাশা – মুহম্মদ জাফর ইকবাল
  • ৮। কাঠপেন্সিল – হুমায়ুন আহমেদ
  • ৯। আরো একটুখানি বিজ্ঞান – মুহম্মদ জাফর ইকবাল
  • ১০। রবো নিশি – মুহম্মদ জাফর ইকবাল
  • ১১। নলিনী বাবু বি এস সি – হুমায়ুন আহমেদ
  • ১২। বেসিক আলী ১, ২ – শাহরিয়ার
  • ১৩। নেইলকাটার – ইশতিয়াক আহমেদ

পরের বার আর কম টাকা নিয়ে ভুল করবো না ইনশাল্লাহ । কাল যাচ্ছি পিকনিকে … লাওয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে । দেখা হবে । আজ অনেক দিন পরে লিখতে বসে বুঝতে পারছি ইন্টারনেট আমার রক্তে মিশে গেছে , এটা ছাড়া আমি অচল !!

আরেকটা কথা , বেশী বেশী বই কিনুন , পড়ুন । কাগজের বই পড়তে যে কি আনন্দ ! কি চমতকার গন্ধ ! অনুমতি না নিয়ে বানানো পিডিএফ কম্পিউটারে পড়ে কি সেইটা পাবেন ??

Advertisements

4 comments on “ঘুরে আসলাম প্রানের মেলা থেকে , একুশে বইমেলা ২০১০

  1. তানভীর হোসেন বলেছেন:

    না পাব না। কিন্তু অনুমতি থাকা গুলো তো পড়তে বাধা নেই…………

  2. তানভীর হোসেন বলেছেন:

    লিনাক্সে আসার পর মনে হয় যেন অনেক সৎ হয়ে গেছি। তাই আমার ও ওইসব স্ক্যান করা বই ভাল লাগে না। তবে ইংরেজি বই প্রচুর আছে। যেমন প্রজেক্ট গুটেনবার্গ।

    যাই হোক, (তুমি করে বলি; যদিও “তুই” বলা উচিৎ)……………

    আমি আজকেই প্রথম আসলাম তোমার ব্লগে………ভালই লাগল। আমার একটা শখ ছিল ………, কিন্তু কি নিয়ে যে লিখব; তাই খুজে পাইনা।

    ভালই হল একজন “টেকি” বন্ধু পাইলাম। আর একটা প্রশ্ন—
    ১। ব্লগিং করছ কোন ক্লাস থেকে………?আর
    ২। লিনাক্স কোন ক্লাস থেকে?

    আর তোমার প্রশ্নের উত্তর আমি ওখানে দিয়েছি, এখানেও দিচ্ছি–
    আমি কুয়েটে মেকানিকালে। স্বল্প পয়েন্টের দরুণ বুয়েটে পরীক্ষা দিতে পারি নাই।

    • সমস্যা নাই তুই তুমি সবই এক … বন্ধু হলে শুধু “আপনি” বলতে মানা 🙂

      চুরি জিনিস ব্যবহার করব কেন ? এই অনুভূতিটা আসলেই অন্যরকম – Thumbs Up For You …

      ব্লগে আসলে যা ভালো লাগে তাই নিয়েই লিখা যায় এবং তাই নিয়েই লিখা উচিত । সাধারন নিজের ভাবনাগুলো জমা করে রাখলেও অনেক বড় বিষয় । বহুদিন পর সেগুলো পড়লে অন্যরকম অনুভূতি হবে । অন্যদের সাথে শেয়ার করার মত মনে যা আসে তাই লিখ , আনন্দ লাগবে । সামুর ব্লগটা দেখলাম পুরাই ফাকা !

      ব্লগিং করছি মোটামুটি বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষার পর থেকে , আর উবুন্টুর সাথে আছি 7.10 থেকে মানে ২০০৮ সাল থেকে !
      হোষ্টেলে আমার সাথের ২ রুমমেটও বুয়েটে দিতে পারে নাই 😦 অথচ দুইজনেই আমার চেয়ে অনেক বেশী পড়াশোনা করেছে বুয়েটের জন্য ।
      কুয়েটের মেকানিক্যালে কেউ জানাশোনা নাই ( এখন তুমি হইলা 🙂 ) , তবে ইলেকট্রিক্যালে একজন আছে নাম ” আসাদ ” ।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s