ফেইসবুকঃ মাঝে মাঝে খুবই ভালো লাগে , মাঝে মাঝে ভাড়খানা মনে হয়

অন্য অনেকের মতই ফেসবুক আমারও অনেক প্রিয় একটা যায়গা । সব বন্ধুদের সাথে যোগাযোগের এতো বেশী ফ্লেক্সিবল পথ আর আছে কিনা আমার জানা নেই । এখন এক মুহুর্তের মধ্যে সব বন্ধুদের খবর জানতে পারছি । আমার হাফ ডজন খানেক স্কুলের অনেক বন্ধুর সাথেই কোন যোগাযোগ ছিল না , সেই যোগাযোগের কাজটাও করে দিয়েছে ফেসবুক । আরো একটা কারণে আমি ফেসবুকের কাছে কৃতজ্ঞ – এইচএসসি এর পরে কোন একটা কারণে ( কারণটা আমি এখনও বের করার চেষ্টা করছি ) আমি সব নাম-টাম ভুলে বসে ছিলাম । তখন যদি ফেসবুক , টুইটার না থাকত তবে বড় ধরনের একটা সমস্যা হয়ে যেত – আমি নিশ্চিত ।

এবার যে জিনিসটা খারাপ লাগে সেটা বলি । ফেসবুকে যত ভাব , তথ্য আদান প্রদান হয় সবই হয় লিখে । যেকোন কথা সামনা-সামনি বলার ক্ষেত্রে অনেকগুলো ভাষা একসাথে কাজ করে – মুখের ভাষা তো আছেই সাথে বলার ধরন , আই-কন্ট্যাক্ট , বডি ল্যাংগুয়েজ ইত্যাদি ইত্যাদি । তাই কোন একটা জোক সামনা-সামনি করা যতটা সোজা কাজ লিখে করা ততটাই কষ্টকর । একই কথা অনেক ইমোশনাল বিষয়ের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য । আর ফেসবুকে লিখে এই কাজটা করতে গিয়েই অনেকে ভজঘট পাকিয়ে ফেলেন। একটা উদাহরন দেইঃ ধরা যাক একজন স্ট্যাটাস দিল –

খুবই অসুস্থ , বিছানা থেকে উঠতে পারছি না

দেখা যাবে এতে কেউ কেউ লাইক মেরে বসে আছেন , কেউ আবার “পইড়া থাক” টাইপ কমেন্ট করে বসে আছেন । এতে কোন সন্দেহ নাই তারা এটা ফান করার জন্য লিখেছেন ( একজন বন্ধু অবশ্যই মন থেকে এটা চাইবে না ) , কিন্তু আমার প্রশ্ন হচ্ছে এই স্ট্যাটাস কি “লাইক” করার মত ? আপনি যদি অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে থাকেন আর আরেকজন আপনার এই অবস্থাতে “লাইক” করে তবে কেমন লাগবে আপনার ?

আমি জানি এই লেখাটা হয়ত অন্যের বিষয়ে নাক গলানোর মত শুনাচ্ছে । একজন কিভাবে কমেন্ট করবে , লাইক দিবে সেটা আমার কোন কিছু আসবে যাবে কেনো ? আমার উদ্দেশ্য কারো কাজে নাক গলানো নয় , শুধু একটু দেখিয়ে দেয়া যে বিষয়গুলো খারাপ দেখায় । কেউ যদি আমার কথায় কষ্ট পান তবে আশা করি ক্ষমা করবেন ।

Advertisements

10 comments on “ফেইসবুকঃ মাঝে মাঝে খুবই ভালো লাগে , মাঝে মাঝে ভাড়খানা মনে হয়

  1. dihan91 বলেছেন:

    ভাল লেখছ জামাল !

  2. রনি বলেছেন:

    🙂 আপনার সব লেখাই আমার ভাল লাগে ।

  3. Sarim Khan বলেছেন:

    ভাই আমার সবসময়ই ফেসবুককে বিনোদন কেন্দ্র মনে হয়। ভাড়াখানা আপনার ভাষায়।

    খুবই অসুস্থ , বিছানা থেকে উঠতে পারছি না
    এইটা যদি একটা মেয়ে দেয় তাইলে দেখবেন আসল মজা, হাজার হাজার লাইক, শত শত কমেন্ট।

    • Jamal Uddin বলেছেন:

      রস+আলোর যাপিত রসটা দারুন হয়েছে 🙂
      যাই হোক , ফেসবুক আমার মেয়ে বন্ধুর সংখ্যা খুবই কম । সবই চেনা-জানা বন্ধু-বান্ধব , তাই এমন অভিজ্ঞতা তেমন নেই । অনেক আগে এক মালয়েশিয়ান বন্ধু ছিল , কোন কুক্ষণে যে তার স্ট্যাটাসে লাইক দিয়েছিলাম ! লাইক দেয়ার পর প্রায় ৮০টার মত নোটিফিকেশন এসেছিল ঐ ফিড থেকে ! এমন অভিজ্ঞতা ঐ একটাই ।
      অবশ্য আমার এইসবে তেমন কোন সমস্যা নাই , কিন্তু উল্টাপাল্টা লাইক খুবই বিরক্ত লাগে ।

  4. Faria Fahim Badhon বলেছেন:

    আমি তো কোনো কথাই পাই না স্ট্যাটাস দেয়ার মত 😛
    কমেন্ট ও দিতে ইচ্ছা করে না। ভয় পাই উত্তরে আবার না জানি কি কমেন্ট আসে ! তবুও অনেক সময় দিয়ে ফেলি। কিছু কমেন্ট আসলেই মাঝে মাঝে খুব আহত করে।

    • Jamal Uddin বলেছেন:

      ফেসবুকের সবচেয়ে বড় সমস্যা গুলোর একটা হল – ইমোশনগুলো ঠিকঠাক বুঝা যায় না , কথাটা টেক্সট বেসড সকল মিডিয়ার ক্ষেত্রেই চলে । তাই সবচেয়ে ভালো বুদ্ধি হল ভয়টাকেই এড়িয়ে যাওয়া ।
      [অবশ্য আমিও এই ভয় এড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যাওয়াদের দলের একজন :)]

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s