আপনার কোন শত্রু আছে ? তাহলে অভিবাদন গ্রহন করুন ।

পরীক্ষা চলছে , আমার ব্লগের স্ট্যাটাস অনুসারে আমার এখন নিঃশ্চুপ থাকার কথা ছিল । সারাটা মাস জুড়ে থেকেছিও । কিন্তু স্বীকার করতেই হচ্ছে খুব কষ্ট হয়েছে – আইডিয়া নামের ঘুনপোকারা পরীক্ষার সময়ে একটু বেশিই কাটাকাটি করে । কাটার কওওট , কওওট শব্দ একসময় অসহনীয় হয়ে যায় । শেষমেষ হঠাৎ করে অল্প সময়ের জন্য হাওয়া হয় এবং আবার নতুন করে চক্রটা শুরু হয় – কট কট কট , কওট , কওওট , কওওট ।

পরীক্ষার সময়ে নতুন নতুন আইডিয়া যেমন মাথাচাড়া দেয় দার্শনিক চিন্তাভাবনাও কম দেখা দেয় না । জগতের সব ছোটখাট বিষয়ে দারুন দারুন সব দার্শনিক আইডিয়া , চিন্তাভাবনা মনের জানালায় ঘুনপোকা হয়ে দেখা দেয় – জীবন নিয়ে নতুন নতুন সব আইডিয়া এসে ভর করে । এ সবই সাময়িক । পরীক্ষা শেষ হবে আর এই সব আইডিয়ার মৃত্যুর হবে – আবার কোন পরীক্ষা সময়ে এসব আইডিয়া আবার নতুন করে দেখা দিবে – কট কট করে ঘুন কাটবে । শেষমেষ কাটা ঘুনগুলো ফাক দিয়ে গলে পড়বে , পচে গলে নস্ট হবে …

আপনার কোন শত্রু আছে ? না থাকলে ভেবে বের করুন । কেনো ? দাড়ান দাড়ান ! তার আগে শত্রু কী সেটা নিয়ে কথা বলা যাক । ধরুন একজন ভালো মানুষের প্রতি কোন কারণে একজন খারাপ মানুষের ঈর্ষা আছে , সেকারণে সেই খারাপ মানুষটি তার ক্ষতি করতে চায় । ভালো মানুষটি কিন্তু খারাপ মানুষটির কোন ক্ষতি করতে চাইবে না ( ক্ষতি করতে চাইলে সে আর ভালো থাকে কিভাবে ? ) – তাহলে কে কার শত্রু ? অবশ্যই খারাপ মানুষটি ভাল মানুষটির শত্রু । এর উল্টোটা কিন্তু নয় ! ভাল মানুষটি কিন্তু খারাপ মানুষটির কোন ক্ষতি করতে চাইছে না – তাই তাকে আপনি খারাপ মানুষটির শত্রু বলতে পারবেন না । অবশ্য দ্বিমুখি শত্রুতা যে থাকেনা তা না , তবে আমি যে বিষয়ে কথা বলছি সে বিষয়ে শত্রুতা সবসময়ই একমুখি ।

একটা জিনিস সবসময় খেয়াল করবেন কোন ভাল কাজের বিরুদ্ধে সবসময় একটা বিরুদ্ধ খারাপ শক্তি দাড়িয়ে যায় । খারাপ শক্তি দাড়ানোর পেছনে কারণটা হল তাদের স্বার্থ খুন্ন হবার আশঙ্কা – অবশ্য একে একমাত্র জেনেরালাইজড কারণও বলতে পারেন । তাই একটা ভালো কাজ করুয়া মানুষের সবসময়ই অনেক অনেক শত্রু থাকে এবং এই শত্রুতা একমুখি !

আপনি যদি ভালো মানুষ হন , আপনার মনে যদি অন্য কারো ক্ষতি করার কোন ইচ্ছা না থাকে তবে ভেবে বের করুন কেউ বিনা কারণে আপনার কোন অনিষ্ট করতে চায় কিনা ? কেউ আপনাকে শত্রু ভাবে যাকে আপনি ভাবেন না ( অবশ্য অন্য জনের মনের কথা কেমন করে জানবেন ? ) – বের করেছেন ? তবে চলুন একটা ক্যাটাগরি করিঃ

১. আপনার শত্রু আছেঃ তারমানে আপনি জীবনে ভালো কিছু করেছেন বা করার চেষ্টা করেছেন । এগিয়ে যান , শত্রুকে ভয় পাওয়ার কোন মানে নেই – ভালোর সবসময় জয় হয় , কোন সন্দেহ নেই । শুভকামনা ।

২. আপনি নিশ্চিত না আপনার শত্রু আছে কিনাঃ ভালো কাজ করতে থাকুন । হয়ত আপনার শত্রুরা এতোটা সাহসী না , নতুবা আপনার ভাল কাজগুলো এতো বড় না ! 🙂

৩. আপনি নিশ্চিত আপনার শত্রু নেইঃ আপনি এখনও ভালো কিছু করেন নি বা করার চেষ্টা করেন নি । সাহস সঞ্চয় করুন , সাহসীরা মরে একবার ভীতুরা মরে বারবার । ভালো সব মানুষেরা ঐক্যবদ্ধ না বলেই আজ সমাজে খারাপ মানুষের রাজত্ব যদিও তাদের সংখ্যা কম । চেষ্টা চালিয়ে যান , আমিও বোধহয় আপনাদের দলে … তাই সবসময় আমাকে পাশেই পাবেন ।

পুনঃ দার্শনিক চিন্তাভাবনায় সবসময়ই পরিবর্তন সম্ভব – তাই উপরের লেখা বেদবাক্য না মনে করাটাই উত্তম । সবচেয়ে ভালো হয় যদি লেখাটাকে কাগজের ঠোঙ্গায় থাকা কোন লেখা বলে মনে করেন – একটা বইয়ের একটা ছেড়া অংশ কিংবা কারো রাফ খাতায় বিক্ষিপ্ত চিন্তাভাবনা ।

কাউকে শত্রু ভাববেন না , ভালো থাকুন ।

Advertisements

12 comments on “আপনার কোন শত্রু আছে ? তাহলে অভিবাদন গ্রহন করুন ।

  1. Snooper Tofa বলেছেন:

    পুনঃ দার্শনিক চিন্তাভাবনায় সবসময়ই পরিবর্তন সম্ভব – তাই উপরের লেখা বেদবাক্য না মনে করাটাই উত্তম

    ভাল লাগসে আমার

  2. রিং বলেছেন:

    আমার শত্রুদেরকে আমি সবসময় আমার বন্ধুদের চাইতেও আপনা করে রাখি। কেননা তাতে করে দুটো ফায়দা – শত্রু পেছনদিক থেকে বা গোপনে হামলা করার সুযোগটা পায় না আর শত্রু তাঁর পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি গ্রহনের পর অবাক হয়ে যায় এটা দেখে যে আমি প্রায় তিন মাস আগেই তাঁর এই পরিকল্পনার উর্ধ্বে চলে গেছি। ক্রমশ একরাশ হতাশায় ডুবে যেতে যেতে শত্রুটি একসময় বাধ্য হয় আমার বন্ধু হয়ে যেতে। 🙂

    • Jamal Uddin বলেছেন:

      আপনি তো দেখছি সবার চেয়ে আলাদা ! তবে শত্রু যেহেতু আছে তার মানে জীবনে কিছু করার চেষ্টা অবশ্যই করেছেন , এবং হয়ত করেছেনও । শত্রুদের আপন করে রাখাটা আমাকে সবসময় একটা ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা স্মরণ করিয়ে দেয় ।

  3. maq বলেছেন:

    আমার তো কোন শত্রু নাই! 😦

    আগে ভাবতাম শত্রু না থাকাটা বেশ ভাল কোন ব্যাপার। এই লেখা পড়ে মনে হচ্ছে, শত্রু না থাকাটাই বরং জীবনের বিশাল বড় “না পাওয়া” ব্যাপার। শত্রু থাকলে দেঝকা যাচ্ছে জীবন অ্যাডভেঞ্চারাস হয়, পদে পদে শত্রুরা ফাঁদ পেতে থাকবে, সেগুলো পার হয়ে যেতে হবে, একটা নির্দিষ্ট লেভেল পর শত্রুর সংখ্যাও বেড়ে যাবে – পুরোই ইন্ডিয়ানা জোন্স! 🙂 শত্রু সংখ্যা হিসাব করার জন্য টুইট বাটন বা লাইক বাটনের মত একটা সোশাল বাটন থাকা উচিৎ!

    • Jamal Uddin বলেছেন:

      আমিও আপনারই দলে নীল ভাই , আমার কোন শত্রু নেই বলেই জানি । তবে চিন্তা করছি না , সৎ যদি থাকতে পারি শত্রু জোটে যাবে ( প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা )

      আপনি যেভাবে ভিডিও গেমের মত এক্সাইটিং করে বলেছেন আমার তো এখনই কিছু একটা করা শুরু করতে ইচ্ছে করছে – ইন্ডিয়ানা জোন্স হতে কে না চাইবে বলেন ? 🙂 তবে টুইট কিংবা লাইক বাটনে কেউ কোনদিন ক্লিক করবে বলে মনে হচ্ছে না 😉

  4. নিশাচর নাইম বলেছেন:

    আমারো ভাই শত্রু নাই।এখন তো দেখি শত্রু বানাতে হবে। 😀 দারুন লেখা।

  5. খুরশীদা ইয়াসমিন বলেছেন:

    আমার শত্রু আছে কিনা জানিনা, এখন থেকে খেয়াল করে দেখবো। থাকতেও পারে। 🙂

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s